Home আজকের খবর মহাদেবের কৃপায় পূরণ হবে সব ইচ্ছা,সামনেই শিব পূজা ,কি কি করবেন দেখেনিন।

মহাদেবের কৃপায় পূরণ হবে সব ইচ্ছা,সামনেই শিব পূজা ,কি কি করবেন দেখেনিন।

প্রতি বছর ফাল্গুন মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশী তিথিতে মহাশিবরাত্রি উৎসব পালিত হয়। বিশ্বাস করা হয় যে এই শুভ দিনে ভগবান শিব এবং মা পার্বতীর বিয়ে হয়েছিল। এই বছর মহাশিবরাত্রি পালিত হবে ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ তারিখে। এই দিনে ভোলেনাথের আরাধনার জন্য সারা দেশের সমস্ত শিব মন্দিরে বিপুল ভিড় জমবে। হিন্দু পঞ্জিকা অনুসারে, ফাল্গুন মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশী তিথিতে মহাশিবরাত্রি উৎসব পালিত হয়। পণ্ডিত অরুণেশ কুমার শর্মার মতে, মহাশিবরাত্রির চতুর্দশী তিথি শুরু হবে ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩-এ রাত ০৮:০২-এ এবং শেষ হবে ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩-এ বিকেল ৪:১৮ মিনিটে৷ নিশিতা কালে মহাশিবরাত্রির পুজো হয়।বিশ্বাস করা হয় যে এই দিনে ভগবান শিব এবং মা পার্বতীর পুজো করলে ভক্তদের জীবনের সমস্ত ঝামেলা দূর হয় এবং তারা সুখ ও সমৃদ্ধি লাভ করেন।

 

 

বেলপত্র ভোলেনাথের খুব প্রিয়। মহাশিবরাত্রির দিন, ভক্তদের ভোলেনাথকে তিন পাতার বেলপত্র নিবেদন করা উচিত। দুধ, গঙ্গাজল, মধু ও দই দিয়ে শিবের অভিষেক করতে হবে।
ভগবান শঙ্করের ক গাঁজা খুব প্রিয়, তাই এই দিনে দুধের সঙ্গে গাঁজা মিশিয়ে শিবলিঙ্গে নিবেদন করুন।
ভগবান শিবতে ধুতুরা এবং আখের রস নিবেদন করুন। এতে জীবনে সুখ বাড়ে।
মহাশিবরাত্রিতে সকাল, দুপুর, সন্ধ্যা ও রাতে এই চার প্রহরে রুদ্রাষ্টাধ্যায়ী পাঠ করুন। আপনি যদি রুদ্রাষ্টাধ্যায়ী পাঠ করতে সক্ষম না হন তবে আপনি ‘ওঁম নমঃ শিবায়’ জপ করার সময় ভগবান শিবের অভিষেক করতে পারেন।

 

মহাশিবরাত্রির দিন রুদ্রাক্ষ পরিধান করে ‘ওম নমঃ শিবায়’ জপ করলে ভগবান শিবের আশীর্বাদ পাওয়া যায়।
এছাড়া এই দিনে ছয়মুখী রুদ্রাক্ষ পরতে হবে। এতে করে ভক্তের অর্থ ও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা দূর হয়।
মহাশিবরাত্রির দিনে শিবলিঙ্গের পূজা সর্বোত্তম বলা হয়েছে। মহাশিবরাত্রির দিন বাড়িতে একটি স্ফটিকের শিবলিঙ্গ স্থাপন করুন এবং প্রতিদিন এটির পূজা করুন। এই প্রতিকারে ঘরের সমস্ত নেতিবাচক প্রভাব দূর হয়ে যাবে। মহাশিবরাত্রি উপলক্ষে, মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র ১.২৫ লক্ষ বার জপ করুন, এতে একজন ব্যক্তি রোগ, শোক এবং বিভিন্ন ধরণের ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।মহাশিবরাত্রির দিন গরুকে সবুজ চাাণ খাওয়ান। এটি করলে ভগবান শিব প্রসন্ন হবেন এবং জীবনে সুখ ও সমৃদ্ধি আসবে।

 

 

মহাশিবরাত্রির দিন ময়দা থেকে ১১টি শিবলিঙ্গ তৈরি করুন এবং তাদের জন্য ১১বার জলাভিষেক করুন। এতে করে সন্তান সংক্রান্ত যাবতীয় সমস্যা দূর হবে।মহাশিবরাত্রির দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে স্নান করে নিন। তারপর ভগবান শিবের মূর্তিকে পঞ্চামৃত দিয়ে স্নান করান। জাফরান মিশ্রিত জল তাকে নিবেদন করুন এবং প্রদীপ জ্বালান। চন্দনের তিলক লাগান। বেল পাতা, গাঁজা, ভাং, ধুতুরা, আখের রস, তুলসী, জায়ফল, কমল গট্টা, ফল, মিষ্টি, মিষ্টি পান, সুগন্ধি এবং দক্ষিণা নিবেদন করুন। ওঁম নমো ভগবতে রুদ্রায়, ওম নমঃ শিবায় রুদ্রায় শম্ভবায় ভবানীপাতায় নমো নমঃ মন্ত্রগুলি পাঠ করুন। এই দিনে শিবপুরাণ পাঠ করুন। মহাশিবরাত্রির দিনেও রাত জাগরণ করা হয়।

Most Popular

পোস্ত কীভাবে এল? দেখুন বিস্তারিত

পেঁয়াজ বা রসুন ছাড়াই রান্না করা এই পদটি প্রতিটি বাঙালি পরিবারের সবচেয়ে সহজ, আরামদায়ক এবং প্রধান নিরামিষ খাবার। পোস্তবাঁটার (Posto Bata) অনন্য স্বাদ, কাঁচা...

রাস্তার ধারে গাছগুলিতে করা হয় সাদা রং ,তবে জানেন কি, কেনো করা হয় ?

রাস্তা দিয়ে পারাপার করার সময় চোখের সামনে অনেক কৌতূহল পূর্ণ জিনিসপত্র ধরা পড়ে। সেই সকল কৌতূহল জিনিসপত্র সম্পর্কে জানার ইচ্ছেও কম থাকে না। সেই...

মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর কেমন আছেন মুকুল রায়?

তাঁর মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করতে হল। আপাতত তিনি বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।সূত্রের খবর, ভুলে যাওয়া থেকে শুরু করে, ব্যালেন্সিংয়ের সমস্যা হচ্ছে প্রবীণ...

শিয়ালদহ মেন শাখায় ট্রেনের দুর্ভোগ বেশ কিছু দিন ধরেই চলছে,নাজেহাল যাত্রীরা।

সকাল ১০.৪০ মিনিটে ডাউন ভাগীরথী এক্সপ্রেস শিয়ালদহ পৌঁছানোর কথা থাকলেও, ওই ট্রেন এ দিন বিকেল চারটের পর গন্তব্যে পৌঁছোয়। ক্ষোভে ফেটে পড়েন যাত্রীরা। সকাল...

Recent Comments