Home খবর NEET পরীক্ষায় সফল হয়ে ডাক্তার হতে চলেছেন অল্পেশ একসময় বাবার সাথে বিক্রি...

NEET পরীক্ষায় সফল হয়ে ডাক্তার হতে চলেছেন অল্পেশ একসময় বাবার সাথে বিক্রি করতেন ফুচকা!

একটা সময়ে বাবার ফুচকার দোকানে প্লেট পরিষ্কার করার কাজ করতে হত তাঁকে। কিন্তু, সমস্ত প্রতিকূলতাকে দূরে সরিয়ে রেখেই তিনি তৈরি করেছেন এক অনন্য সফলতার কাহিনি (Success Story)। শুধু তাই নয়, ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি এন্ট্রান্স টেস্ট (NEET) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর, অল্পেশ এখন মানবশরীরের হৃৎপিণ্ড থেকে ব্লকেজ দূর করার স্বপ্ন দেখছেন।গুজরাটের আরাবল্লি জেলার অন্তর্গত মেঘরাজ নামের একটি ছোট শহরের ফুচকা বিক্রেতার ছেলে অল্পেশ শীঘ্রই ডাক্তারি পড়ার জন্য একটি সরকারি কলেজে ভর্তি হতে চলেছেন। সম্প্রতি তিনি NEET পরীক্ষায় ৭০০-র মধ্যে ৬১৩ নম্বর পেয়েছেন।

এমতাবস্থায়, অল্পেশ ডাক্তারি পড়ে ভবিষ্যতে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ হতে চান। এই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, “আমি কার্ডিওলজিতে বা নিউরোলজিতে কেরিয়ার গড়তে চাই।”এদিকে, অল্পেশ তাঁর গ্রাম কেন্থওয়ার প্রথম চিকিৎসক হতে চলেছেন। তিনি বলেছেন, দশম শ্রেণি পর্যন্ত তাঁকে তাঁর বাবা রাম সিংয়ের সাথে ফুচকা এবং মশলা তৈরিতে সাহায্য করার জন্য প্রতিদিন ভোর ৪ টায় ঘুম থেকে উঠতে হত। এরপরে, তাঁকে ফুচকার স্টলটি সাজাতে হত। স্কুল শেষ করার পর সন্ধ্যায়, অল্পেশ ফুচকা বিক্রি করতেন এবং গ্রাহকদের এঁটো বাসনপত্রও ধুতে হত তাঁকে।পড়াশোনায় অল্পেশ বরাবরই মেধাবী ছিলেন।

তিনি দশম শ্রেণির পরীক্ষায় ৯৩ শতাংশ নম্বর পান। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমার শিক্ষক রাজু প্যাটেল এবং তাঁর স্ত্রী আমাকে আমার কেরিয়ারের বিষয়ে অনেক বিকল্পের খোঁজ দিয়েছেন। তবে, আমি প্রথম থেকেই মেডিসিনের সাথে যুক্ত হতে চেয়েছি। কারণ আমার বাবা দৃষ্টিশক্তি হারানোর সাথে লড়াই করছেন। এরপরে আমার লক্ষ্য ছিল এমবিবিএস-এর প্রবেশিকা পরীক্ষার জন্য।”উল্লেখ্য যে, অল্পেশের বাবার মাসিক আয় ১৫ হাজার টাকা। যার কারণে পরিবারে চালাতে হিমশিম খেতে হয় তাঁকে। এমন পরিস্থিতিতে, NEET-এর কোচিংয়ের জন্যও অল্পেশকে আর্থিক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়। ইতিমধ্যেই তাঁর এই দারুণ সাফল্যের প্রসঙ্গে একটি ভিডিও ভাইরাল হতে শুরু করেছে নেটমাধ্যমে।

Most Popular

পোস্ত কীভাবে এল? দেখুন বিস্তারিত

পেঁয়াজ বা রসুন ছাড়াই রান্না করা এই পদটি প্রতিটি বাঙালি পরিবারের সবচেয়ে সহজ, আরামদায়ক এবং প্রধান নিরামিষ খাবার। পোস্তবাঁটার (Posto Bata) অনন্য স্বাদ, কাঁচা...

রাস্তার ধারে গাছগুলিতে করা হয় সাদা রং ,তবে জানেন কি, কেনো করা হয় ?

রাস্তা দিয়ে পারাপার করার সময় চোখের সামনে অনেক কৌতূহল পূর্ণ জিনিসপত্র ধরা পড়ে। সেই সকল কৌতূহল জিনিসপত্র সম্পর্কে জানার ইচ্ছেও কম থাকে না। সেই...

মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর কেমন আছেন মুকুল রায়?

তাঁর মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করতে হল। আপাতত তিনি বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।সূত্রের খবর, ভুলে যাওয়া থেকে শুরু করে, ব্যালেন্সিংয়ের সমস্যা হচ্ছে প্রবীণ...

শিয়ালদহ মেন শাখায় ট্রেনের দুর্ভোগ বেশ কিছু দিন ধরেই চলছে,নাজেহাল যাত্রীরা।

সকাল ১০.৪০ মিনিটে ডাউন ভাগীরথী এক্সপ্রেস শিয়ালদহ পৌঁছানোর কথা থাকলেও, ওই ট্রেন এ দিন বিকেল চারটের পর গন্তব্যে পৌঁছোয়। ক্ষোভে ফেটে পড়েন যাত্রীরা। সকাল...

Recent Comments