Home আজকের খবর কাজের খোঁজে ভিনরাজ্যের উদ্দেশ্যে রওনা

কাজের খোঁজে ভিনরাজ্যের উদ্দেশ্যে রওনা

কাজের খোঁজে ভিন রাজ্যে পাড়ি দিচ্ছে ইন্দাস ব্লকের পরিযায়ী শ্রমিকরা , বিজেপির অভিযোগ তৃণমূল শাসিত পশ্চিমবঙ্গে পরিযায়ী শ্রমিক দের কাজ নেই তাই পাড়ি দিচ্ছে বিজেপি শাসিত রাজ্যে তবে শাসক দল জবাব দিতে ছাড়েননি শাসক দলের দাবি ইন্দাস ব্লকের প্রত্যেকটি পরিযায়ী শ্রমিক কাজ দেওয়া হয়েছে ব্যবস্থা করা হয়েছে খাদ্যের এটা বিজেপির চক্রান্ত কোন মানুষ এখনো আমাদের কাছে অভিযোগ করেনি I এটাই বিজেপির কালচার I

আর মাঝে মাত্র কয়েক টা দিন। তারপরেই বাঙালি সবথেকে বড় উৎসব দুর্গাপুজো। কিন্তু এই উৎসবের আনন্দে ভাটা পড়েছে! কারণ করোনা ভাইরাস।

গত চার মাস আগে করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে যখন গোটা দেশজুড়ে লকডাউন জারি হয়েছিল। তখনই বিভিন্ন রাজ্য থেকে কাজ হারিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়েছিল অগণিত পরিযায়ী শ্রমিক। তাদের দল বেঁধে, কোলে শিশু, কাঁধে ব্যাগ, মাথায় বেডিং, পায়ে হেঁটে বাড়ি ফেরার চিত্র এখনো সবাই কার মনে গাঁথা। কতজন শ্রমিক ই বাড়ি ফিরতে গিয়ে রাস্তাতেই প্রাণ হারিয়েছিলেন। কেউ কেউ আবার ঘুমের ঘোরেই মালগাড়ি চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। কেউ আবার খেতে না পেয়ে রাস্তাতেই জীবনের ইতি টেনেছিলেন। সে সব এখন ইতিহাস। কিন্তু বাড়ি এসে গত চার মাসে ভাড়ার প্রায় শূন্য। বিগত কয়েক বছরে যে কটি পয়সা উপার্জন হয়েছিল তাও প্রায় শেষ। রাজ্যে কাজের অভাব, কাজ নেই! তাই করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক কে দূরে সরিয়ে রেখে আবার পাড়ি জমানো পুরনো কাজের সন্ধানে। হ্যাঁ এমনই ঘটনার সাক্ষী থাকলো বাঁকুড়ার পশ্চিম প্রান্তের বর্ধমান লাগোয়া ইন্দাস এলাকায় মানুষ । জিম করা , শিকরা , কড়ারডাঙ্গা এলাকার প্রায় জনা ষাঁটেক শ্রমিক আজ পুরনো কাজের সন্ধানে আবার পাড়ি জমালেন ভিন রাজ্যে। একটি বাসে করে গ্রামের ছেলে ছোকরা মাঝবয়সী ফিরে গেলেন দক্ষিণের ব্যাঙ্গালোর শহর উদ্দেশ্যে।

সামনেই মা মহামায়া দুর্গাপূজা। অন্য বছর সারা বছর কাজ সেরে এই সময় বাড়ি ফেরেন গ্রামের অনেকে। তারপর দুর্গাপূজা কালীপূজা দেওয়ালি ভাইফোঁটা সেরে, দুই মাসের ছুটি কাটিয়ে আবার কর্মব্যস্ততায় ফেরার পালা। কিন্তু এ বছর সব হিসাব নিকেশ উল্টোপাল্টা করে দিয়েছে অতিমারি করোনা। আজ তাই ঠিক মহামায়া কৈলাস থেকে মর্তে পাড়ি দেওয়ার সময় আবার ভিনরাজ্যে পাড়ি দিতে হচ্ছে গ্রামের ছেলেপুলেদের। মন ভারাক্রান্ত। মা, স্ত্রী, বাচ্চাকাচ্চা ছেড়ে যেতে মন চায় না। কিন্তু কিছু করার নেই, অভাবের সংসার, তাই কাজ ছাড়া বসে থাকার উপায় নেই। বাড়িতে যেটুকু চাষাবাদের কাজ বাকি ছিল তাও সারা। এবার ফসল ওঠার পালা। তাই বসে না থেকে পুরনো কাজের সন্ধানে পাড়ি দিতেই এদিন পা বাড়ালেন ৬০ সদস্যের পরিযায়ী শ্রমিক একটি দল।

করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক এখনো পুরোপুরি কাটেনি । কিন্তু বাড়িতে বসে বসে খেয়ে ভাড়ার প্রায় শূন্য। তাই জীবনের ঝুঁকি নিয়েই আবার ভিন রাজ্যে পাড়ি দেওয়া। বাবা-মা স্ত্রী আত্মীয়-পরিজন সকলকে ছেড়ে যেতে মন চায় না। কিন্তু কিছু করার নেই। নুন আনতে পান্তা ফুরায় সংসারে পরিবার পরিজনের মুখে দু’বেলা দু’মুঠো খাবারের সংস্থান করতে তাদের ভিনরাজ্যে যেতেই হবে। সরকার কাজের ব্যবস্থা করুক তাহলে আর বিদেশ বিভূই যেতে হয় না এমনই কাতর আর্তি পরিযায়ী শ্রমিক থেকে তাদের পরিবারের লোকজন সকলেরই।

কাজের খোঁজে ভিনরাজ্যের উদ্দেশ্যে রওনা ( বাঁকুড়া )

কাজের খোঁজে ভিনরাজ্যের উদ্দেশ্যে রওনা ( বাঁকুড়া )

Gepostet von ACN Life News am Samstag, 12. September 2020

ছেলে স্বামীর চিন্তায় দুচোখের পাতা এক করতে পারেন না। রাতে ঘুম হয় না । ছেলে স্বামী কি করছে সেদিকেই মন পড়ে থাকে । কিন্তু কিবা করবেন অভাবের সংসারে ছেলে স্বামী কাজ না করলে কিভাবে মিটবে পেটের জ্বালা । পেটের জ্বালা মহা জ্বালা । তাই হাজার কষ্টে বুক পাথর হয়ে গেলেও পেট ভরাতে ছেলে স্বামীকে ছেড়ে দিতেই হয় দূর দূরান্তে ।

অবশ্য এরা কেউ জানেনা ব্যাঙ্গালোরের পরিস্থিতি। তারা আদৌ ব্যাঙ্গালোর পৌঁছতে পারবেন কিনা সেটাও এখনো সন্দিহান । কেউ হোটেলে, কেউ রাজমিস্ত্রি জোগাড়ের, কেউ আবার কোন কারখানায় শ্রমিকের কাজ করতেন। সে সব কারখানা আদৌ খুলেছে কিনা বা খুললেও তাতে আবার কাজে জুটবে কিনা তারা কেউ জানে না। তবে ঝুঁকি তাদের নিতেই হবে। তাই আবার পাড়ি বাগানের শহরে।

রাজনৈতিক দল অবশ্য চুলোচুলি তেই ব্যস্ত । রাজনীতি করতে ছাড়লেন না যুযুধান দুই পক্ষই । বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে রাজ্য সরকারের হাতে কাজ নেই । বড় বড় ভাওতাবাজি মেরেছিল । সাধারণ খেটে খাওয়া পরিযায়ী শ্রমিক দের কাজের জন্য রওনা দিতে হচ্ছে বিজেপি শাসিত রাজ্যে ।

তৃণমূলের পাল্টা দাবি ইন্দাস এলাকায় নয়শো জন পরিযায়ী শ্রমিক এর সকলের নামের জব কার্ড করে দেওয়া হয়েছে। করে দেওয়া হয়েছে রেশনিং ব্যবস্থা। বিজেপির চক্রান্ত করে, মিথ্যাচার করে, রঙ চড়িয়ে পরিযায়ী শ্রমিক দের নিয়ে ঘোলা জলে মাছ ধরার চেষ্টা করছেন ।

Most Popular

ইসলামাবাদের বাজারে ভয়াবহ আগুন,।

শর্ট সার্কিট থেকেই আগুন লেগেছে বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান।এই অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ৩০০টি দোকান পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে গিয়েছে।দমকলের দশটি গাড়ি কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে...

হাসিমুখে তিন সিংহ এর পিছনে হাঁটছেন তরুণী ভাইরাল ভিডিও।

একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে তিনটি সিংহকে আগে নিয়ে পেছনে হাসিমুখে তরুণী হেটে চলেছে। বেশ ভালই প্রতিক্রিয়া পেয়েছে এই ভিডিওটি।গার্লফ্রমপ্যারাডাইস৯’ নামের একটি...

আলিয়া ভট্ট মাতৃত্ব এর সময়কাল কেমন উপভোগ করছেন তিনি।

মাত্র তিন সপ্তাহের মধ্যে মাতৃত্ব আমাকে অনেকটাই বদলে দিয়েছে।’’ এই প্রসঙ্গেই আলিয়ার কাছে জানতে চাওয়া হয়, আগামী দিনে চরিত্র নির্বাচনের ক্ষেত্রে মাতৃত্ব কী ভূমিকা...

ক্রিকেট খেলতে গিয়ে হৃদ্‌‌রোগে মৃত্যু হলো দশম শ্রেণির ছাত্রের।

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের কানপুরে।বুধবার কানপুরে বিলহাউর এলাকায় বন্ধুদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলছিল অনুজ। ব্যাটিং করছিল সে। রান নিতে গিয়ে দৌড়নোর সময় আচমকা পড়ে যায় ওই...

Recent Comments