Home আজকের খবর ন্যাশনাল মিটে হাঁটা প্রতিযোগিতায় ব্রোঞ্জ পদক জয়লাভ মালদার পূজার

ন্যাশনাল মিটে হাঁটা প্রতিযোগিতায় ব্রোঞ্জ পদক জয়লাভ মালদার পূজার

গুজরাটে আয়োজিত ন্যাশনাল মিটে হাঁটা প্রতিযোগিতায় ব্রোঞ্জ পদক জয়লাভ মালদার পূজার।
রতুয়া, ১৯ অক্টোবর : আদপে তিনি মালদার মেয়ে৷ তবে দীর্ঘদিন ধরে রয়েছেন শিলিগুড়িতে৷ বাবা ছিলেন ক্ষৌরকার৷ গ্রামে সেভাবে আয় হচ্ছিল না৷ তাই দীর্ঘ বছর আগে পরিবার নিয়ে পাড়ি দিয়েছিলেন উত্তরের রাজধানীতে৷ দু’বছর আগে বাবার মৃত্যু হয়েছে৷ দুই মেয়ে সহ নিজের পেট চালাতে শ্রমিকের কাজ করেন মা৷ সেই মেয়েই মালদার মুখ উজ্জ্বল করেছে৷ সম্প্রতি গুজরাটে আয়োজিত ৩৬তম ন্যাশনাল মিটে ৩৫ কিলোমিটার হাঁটা প্রতিযোগিতায় ব্রোঞ্জ পদক জয় করেছেন রতুয়া-২ ব্লকের পরাণপুর পঞ্চায়েতের মীরজাতপুর গ্রামের মেয়ে পূজা প্রামাণিক৷ এখন তাঁর চোখে প্যারিস অলিম্পিকের স্বপ্ন৷ জন্ম মীরজাতপুর গ্রামে৷ প্রাথমিক শিক্ষাও এই গ্রামেই৷ মীরজাতপুর স্ট্যান্ডে তাঁর পৈতৃক বাড়ি৷ ক্ষৌরকার বাবা মানিক প্রামাণিক আর মা টুম্পাদেবীর হাত ধরে খুব ছোটতেই শিলিগুড়ি পাড়ি পূজার৷ তাঁরা দুই বোন৷ ছোট বোন নেহার পড়াশোনা শুরু হয় শিলিগুড়িতেই৷ মানিকবাবুর মৃত্যুর পর তাঁদের মা শ্রমিকের কাজ করে সংসার চালান৷ শিলিগুড়ির স্কুল থেকে উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণ হয়ে জলপাইগুড়ির ফালাকাটা কলেজ থেকে স্নাতকোত্তর শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হন পূজা৷ স্কুলে পড়ার সময় থেকেই খেলাধুলোয় আগ্রহ তাঁর৷ একটা সময় মালদা বিমানবন্দরের মাঠে অমিতাভ রায়ের কাছে কিছুদিন তিনি হাঁটার প্রশিক্ষণ নেন৷ এরপর শিলিগুড়িতে শুরু হয় তাঁর অনুশীলন পর্ব৷ বছর দুয়েক ধরে তিনি দেরাদুনে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন৷ গত রবিবার পৈতৃক বাড়িতে ঠাকুমাকে দেখতে এসেছিলেন পূজা৷ মালদায় ফিরতেই তাঁকে সংবর্ধনা জানান তাঁর প্রথম প্রশিক্ষক সহ আরও অনেকে৷ গতকালই তিনি শিলিগুড়ি ফিরে গিয়েছেন৷ পূজার প্রথম প্রশিক্ষক অমিতাভবাবু জানান, ‘সাধারণত চার বছর অন্তর ন্যাশনাল মিট হয়৷ কিন্তু করোনার জন্য এবার সেই প্রতিযোগিতা সাত বছর পর অনুষ্ঠিত হল৷

এই প্রতিযোগিতায় পশ্চিমবঙ্গ থেকে ২৬ জন প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন৷ তাঁদের মধ্যে শুধু পূজাই সাফল্য পেয়েছে৷ তার এই সাফল্য শুধু এই জেলার নয়, গোটা রাজ্যের৷ ২০১৮ সালে সে আমার কাছে প্রথম প্রশিক্ষণ নিতে এসেছিল৷ তার অদম্য ইচ্ছাশক্তিই তাকে এই সাফল্য এনে দিয়েছে৷ পূজার জন্য আমি গর্বিত৷ তবে উত্তরবঙ্গের ছেলেমেয়েরা খেলাধুলোর জগতে একের পর এক সাফল্য এনে দিলেও তাদের প্রশিক্ষণের মতো পরিকাঠামো এখানে নেই৷ রাজ্য সরকারের উচিত, দ্রুত এখানেও কৃত্রিম টার্ফের ব্যবস্থা করা৷’ এদিন শিলিগুড়ি থেকে পূজা জানান, ‘চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত মীরজাতপুর গ্রামের স্কুলে পড়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে আমি শিলিগুড়ি চলে আসি৷ এখানে পঞ্চম শ্রেণিতে ভর্তি হই৷ বোন নেহা এখন অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে৷ আসলে গ্রামে বাবার তেমন রোজগার হচ্ছিল না৷ তাই তিনি এখানে সেলুনে কাজ করতে চলে আসেন৷ শিলিগুড়িতে স্কুলে ভর্তি হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন খেলা খেলতাম৷ কিন্তু বুঝতে পারছিলাম না, কোন খেলাটা আমার জন্য ঠিক হবে৷ শেষ পর্যন্ত আমি হাঁটা প্রতিযোগিতার জন্য নিজেকে তৈরি করতে শুরু করি৷ ২০১৮ সালের শেষের দিকে আমি প্রশিক্ষণ নিতে শুরু করি৷ ২০১৯ সালে রাজ্যস্তরের প্রতিযোগিতায় অংশ নিই৷ এরপর রাঁচিতে আয়োজিত একটি জাতীয় প্রতিযোগিতায় অংশ নিই৷ সেখানে সপ্তম স্থান পেয়েছিলাম৷ অবশেষে গত ৪ অক্টোবর আমেদাবাদে আয়োজিত ন্যাশনাল মিটে ৩৫ কিলোমিটার হাঁটা প্রতিযোগিতায় আমি ব্রোঞ্জ পদক পাই৷ ওই ইভেন্টে দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকে সাত জন প্রতিযোগী অংশ নিয়েছিলেন৷’পূজা আরও জানান, ‘সামনে অল ইন্ডিয়া ইউনিভার্সিটি মিট রয়েছে৷ তার সূচি এখনও ঠিক হয়নি৷ ওই প্রতিযোগিতাকে লক্ষ্য রেখে আমি দেরাদুনে প্রশিক্ষণ নিচ্ছি৷ তবে আমার প্রথম প্রশিক্ষণ শুরু মালদা শহরে৷ ছ’মাস এয়ারপোর্ট মাঠে আমি অমিতাভ রায়ের কাছে প্রশিক্ষণ নিয়েছি৷ সেখানে আমি একাই প্রশিক্ষণ নিতাম৷ স্যারই আমাকে প্রশিক্ষণ নিতে বাইরে যেতে বলেছিলেন৷ এখন আমি দেরাদুনে অনুপ বিস্তের কাছে প্রশিক্ষণ নিচ্ছি৷ কয়েকদিনের মধ্যেই সেখানে চলে যাব৷ তাঁর কাছে অলিম্পিকের প্রতিযোগীরাও প্রশিক্ষণ নেন৷ আমি বিশ্বাস করি, একদিন আমিও অলিম্পিকে খেলব৷’
পূজা জানান, তাঁর মা রাস্তা নির্মাণে শ্রমিকের কাজ করেন৷ বাবার মৃত্যুর সেভাবেই তাঁদের সংসার চলছে৷ পরিবারে প্রচণ্ড অনটন৷ মানুষের সাহায্যেই তিনি প্রশিক্ষণ নিয়ে যাচ্ছেন৷ ন্যাশনাল মিটে সাফল্যলাভের পর সেই সাহায্য খানিকটা পাওয়া যাচ্ছে৷ তবে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে এখনও তিনি কোনও সহযোগিতা পাননি৷ শুধু সরকারই নয়, পঞ্চায়েতের তরফেও তাঁকে কোনও সাহায্য করা হয়নি৷

ভাইঝির এই সাফল্যে বেজায় খুশি পিসি৷ মীরজাতপুরেই থাকেন রীনা প্রামানিক৷ তিনি জানান, ‘শুনলাম ভাইঝি বাইরে খেলে পদক পেয়েছে৷ খুব আনন্দ হচ্ছে আমাদের৷ আমার বিয়ে বাইরে হয়েছে৷ কিন্তু মা উর্মিলা প্রামাণিক এখানে একা৷ তিনি অসুস্থ৷ মাকে দেখাশোনা করতেই এখানে থাকছি৷ দু’বছর আগে বাইক থেকে পড়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হঠাৎ দাদা মারা যায়৷ তারপর বৌদি কখনও শ্রমিকের কাজ করে, কখনও ঝালমুড়ি বিক্রি করে মেয়ে দুটোকে মানুষ করছে৷ ঈশ্বরের কাছে আর্জি জানাচ্ছি, যাতে একটা ভাইঝি চাকরি পায়৷ তাহলে দাদার সংসারটা বেঁচে যাবে৷ অসুস্থ ঠাকুমাকে দেখতে পূজা মাঝেমধ্যে এখানে আসে৷ আবার আসবে বলেছে৷ ও যেন আরও একটা পদক নিয়ে বাড়িতে আসে৷’ পূজার প্রতিবেশী শেখ সিয়ামাততুল্লা বলেন পূজার এই গ্রামেই জন্ম ছোটবেলাই এখানেই পড়াশোনা করেছে। তবে আর্থিক অনটনের ফলে তার বাবার সঙ্গে শিলিগুড়ি চলে যায়। পরিবার সহ তারা সেখানেই থাকছে। মাঝেমধ্যে দিদাকে দেখতে এখানে আসে। গুজরাতে খেলতে গিয়েছিল সেখানে তৃতীয় হয়েছে এবং আমাদের পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে প্রথম হয়েছে। শুনে আমাদের খুব ভালো লাগছে। আমরা চাইছি পূজা আরো ভালো জায়গায় পৌঁছাক। এবং আমাদের রাজ্যের নাম উজ্জ্বল করুক। পুরানপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান জাসমিন বিবি বলেন পূজা আমাদের গ্রামের মে। পূজার পরিবার এখন শিলিগুড়িতে থাকে। শুনেছি দুবছর আগে পূজার বাবা মানিক প্রামানিকের মৃত্যু হয়েছে। গুজরাতের খেলতে গিয়েছিল সেখানে ভারতবর্ষে তৃতীয় এবং পশ্চিমবাংলায় প্রথম হয়েছে। তাদের আর্থিক অবস্থা খুব ভালো নেই। ভালো জায়গায় পৌঁছাতে গেলে তার অর্থের প্রয়োজন পড়তে পারে। তার জন্য আমরা আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে চাইছি।

Most Popular

পাঠান’ ঝড়ের মাঝেই বিস্ফোরক মন্তব্য অভিজিৎ ভট্টাচার্যের, কাকে নিয়ে ?

সকলের কাছে ‘স্পষ্টবাদী’ হিসেবেই পরিচিত অভিজিৎ ভট্টাচার্য।তবে দুর্দান্ত গায়কীর পাশাপাশি নিজের ঠোঁটকাটা স্বভাবের জন্যেও মাঝেমধ্যে চর্চার কেন্দ্রে উঠে আসেন তিনি।সম্প্রতি যেমন তাঁরই একটি সাক্ষাৎকারের...

এই বিতর্কিত বাঙালী অভিনেত্রী পারি দিচ্ছেন টলিউড ছেড়ে সোজা হলিউডে

নায়িকার অভিনয় জীবন খুবই সাকসেসফুল। অবশ্য কম দিন তো আর হলনা এই ইন্ডাস্ট্রিতে। সেই কোন ছোটবেলায় পা রেখেছিলেন এখানে। তারপর যে, কত ছবিতে অভিনয়...

ইউরিক অ্যাসিডের সমস্যা থাকলে এই পানিও আপনার রোগবালাই জব্দ করবে দেখুন এই প্রতিবেদনে

কর্মব্যস্ত জীবন এবং পরিবর্তিত খাদ্যাভ্যাস যে সব অসুখকে আরও বড় আকারে ডেকে আনছে, তার মধ্যে অন্যতম রক্তে ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া।ইউরিক অ্যাসিড শরীরে...

১ বছর পরও নতুন দেখাতে ,লেপকম্বল এই ভাবে রাখুন

শীতে ব্যবহারের পর লেপ কম্বল এবং সোয়েটারগুলোকে ভাল করে পরিষ্কার করে তবেই গুছিয়ে রাখা উচিত। সেই সঙ্গে গুছিয়ে রাখার সঠিক উপায়টাও (Winter Care Tips...

Recent Comments