Home খবর আম্বানি ৫টায় ঘুম থেকে উঠে কি কি করেন ।

আম্বানি ৫টায় ঘুম থেকে উঠে কি কি করেন ।

প্রত্যেক মুহুর্ত কঠোর পরিশ্রম করে তিনি আজ এই পর্যায়ে পৌঁছেছেন।বিলাসবহুল জীবন থাকা সত্ত্বেও ছকে বাঁধা জীবন (Mukesh Ambani Daily Routine) কাটিয়ে যাচ্ছেন মুকেশ আম্বানি।বর্তমানে এশিয়ার তথা গোটা বিশ্বের প্রথম সারির ধনকুবেরের তালিকার মধ্যে রয়েছেন মুকেশ আম্বানি। ভোর পাঁচটায় ঘুম থেকে উঠে সারাদিন কী কী কাজ করেন মুকেশ আম্বানি? দেখে নিন এক নজরে।যোগব্যায়াম, কাজ, পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো থেকে শুরু করে খাওয়া, ঘুম, সবই নির্দিষ্ট রুটিন অনুযায়ী নিয়ম মেনে করেন তিনি। মুকেশ আম্বানির দিনের শুরুটা হয় ভোর ৫টার সময়। তার বাড়ি অ্যান্টিলিয়া থেকে মুম্বাইয়ের সমুদ্র সৈকতের মনোরম দৃশ্য দেখতে দেখতেই নাকি দিনের শুরুটা করেন তিনি। এরপর যোগব্যায়াম করেন নিয়ম মেনে।

তারপর স্বাস্থ্যকর ব্রেকফাস্ট করেন।মুকেশ আম্বানি সে কথা অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলেন। এত বড় একটা ইন্ডাস্ট্রির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেওয়ার জন্য মনোসংযোগ থাকা জরুরি। ধ্যানই কেবল মনের একাগ্রতা বাড়াতে পারে। শরীরচর্চার প্রতি তার বেশ মনোযোগ রয়েছে। দিনের একটা নির্দিষ্ট সময়ে জিমে গিয়ে শরীরচর্চা করার গুরুত্ব তিনি বোঝেন। তাই শরীরের যত্ন নিতে তিনি প্রতিদিন জিমে গিয়ে কসরত করেন। শরীর এবং মন ভালো রাখার জন্য সবকিছুই করেন তিনি।দিনের একটা নির্দিষ্ট সময় পড়াশোনার জন্য তুলে রেখেছেন মুকেশ আম্বানি। সামাজিক এবং বুদ্ধিমত্তার দিক থেকে সবসময় আপ টু ডেট থাকতে হয় তাকে। তার জন্য তিনি নিয়ম করে প্রতিদিন রীতিমতো পড়াশোনা করেন।ঘড়ির কাঁটার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলেন মুকেশ আম্বানি। কাজে যাতে একচুলও এদিক-ওদিক না হয় তার জন্য সর্বদা সচেষ্ট থাকেন তিনি।

লিফটে করে বাড়ির তৃতীয় তলায় আসেন তিনি। এখানেই রয়েছে পার্কিং লট। এখানে তার পছন্দের ২০০ টিরও বেশি দামি ব্র্যান্ডেড গাড়ি এবং বাইক রয়েছে। তবে তিনি সাধারণত মার্সিডিজ মেব্যাক ৬২ গাড়িতে চড়ে সব জায়গাতে যাতায়াত করেন। প্রত্যেক দিন সকাল ১১টার মধ্যে তার অফিসে ঢোকার চাইই চাই।অফিসে পৌঁছানোর পরই তিনি দিনের সময়সূচী জেনে নেন তার নির্বাহী সহকারির থেকে। সেইমতো কাজগুলি আগে সেরে ফেলেন।১ ঘন্টার জন্য লাঞ্চ ব্রেক থাকে তার। এই সময় তিনি তার পরিবারের সঙ্গে কিছুক্ষণ সময় কাটানোর সুযোগ পান। এতে কর্মব্যস্ততার মাঝে কিছুক্ষণ বিরতি পান তিনি। সঙ্গে তার কর্মদক্ষতারও বৃদ্ধি হয়।দিনে যেমন খুব তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠেন, তেমনি রাতেও খুব তাড়াতাড়িই ঘুমোতে যান মুকেশ আম্বানি। প্রতিদিন ৭-৮ ঘন্টা ঘুম নিশ্চিত করেন তিনি। এতে তার শরীরে এনার্জি লেভেল থাকে ভরপুর।

Most Popular

পোস্ত কীভাবে এল? দেখুন বিস্তারিত

পেঁয়াজ বা রসুন ছাড়াই রান্না করা এই পদটি প্রতিটি বাঙালি পরিবারের সবচেয়ে সহজ, আরামদায়ক এবং প্রধান নিরামিষ খাবার। পোস্তবাঁটার (Posto Bata) অনন্য স্বাদ, কাঁচা...

রাস্তার ধারে গাছগুলিতে করা হয় সাদা রং ,তবে জানেন কি, কেনো করা হয় ?

রাস্তা দিয়ে পারাপার করার সময় চোখের সামনে অনেক কৌতূহল পূর্ণ জিনিসপত্র ধরা পড়ে। সেই সকল কৌতূহল জিনিসপত্র সম্পর্কে জানার ইচ্ছেও কম থাকে না। সেই...

মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর কেমন আছেন মুকুল রায়?

তাঁর মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করতে হল। আপাতত তিনি বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।সূত্রের খবর, ভুলে যাওয়া থেকে শুরু করে, ব্যালেন্সিংয়ের সমস্যা হচ্ছে প্রবীণ...

শিয়ালদহ মেন শাখায় ট্রেনের দুর্ভোগ বেশ কিছু দিন ধরেই চলছে,নাজেহাল যাত্রীরা।

সকাল ১০.৪০ মিনিটে ডাউন ভাগীরথী এক্সপ্রেস শিয়ালদহ পৌঁছানোর কথা থাকলেও, ওই ট্রেন এ দিন বিকেল চারটের পর গন্তব্যে পৌঁছোয়। ক্ষোভে ফেটে পড়েন যাত্রীরা। সকাল...

Recent Comments